top of page
Search

বাইবেলের ঈশ্বরের সংজ্ঞা কি?


বাইবেল থেকে সারাংশ করে বলা যায়,ঈশ্বর হচ্ছেন এক, ব্যক্তি, আত্না, যাঁর কোন দেহ বা আকৃতি নেই, যিনি অদৃশ্য, পবিত্র ও সিদ্ধ, অনন্তকালীন, স্ব -নির্ভর, সার্বভৌম, মানুষের সংগে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ও যোগাযোগ স্থাপন করার ক্ষমতাপন্ন জন যিনি নিজেকে দৃশ্যনীয় পুত্র যীশুতে প্রকাশ করেছেন, এবং অদৃশ্য পবিত্র আত্নায় প্রকাশমান।


কেননা ঈশ্বরের বিষয়ে যাহা জানা যাইতে পারে, তাহা তাহাদের মধ্যে সপ্রকাশ আছে, কারণ ঈশ্বর তাহা তাহাদের কাছে প্রকাশ করিয়াছেন। ফলতঃ তাঁহার অদৃশ্য গুণ, অর্থাৎ তাঁহার অনন্ত পরাক্রম ও ঈশ্বরত্ব, জগতের সৃষ্টিকাল অবধি তাঁহার বিবিধ কার্য্যে বোধগম্য হইয়া দৃষ্ট হইতেছে, এ জন্য তাহাদের উত্তর দিবার পথ নাই; (রোমীয় ১:২০-২১)

আমাদের জন্য যতটুকু দরকার, ঈশ্বর বিভিন্ন নবীদের কাছে প্রেরিত তাঁর ওহীর মধ্য দিয়ে ততটুকু আমাদের কাছে প্রকাশ করেছেন। সে জন্য ঈশ্বরকে ঈশ্বরের বাক্য দ্বারা বোঝা যেতে পারে। খ্রীস্টান ধর্মতত্ত্ববিদগন বাইবেল গবেষণা করে ঈশ্বর সম্পর্কে নিম্নরূপ ব্যাখ্যা দিয়েছেন:


ঈশ্বর এক, জীবন্ত ও সত্য ঈশ্বর ব্যতীত আর কেউ নেই, যিনি তাঁর সত্তা ও সিদ্ধতায় অসীম, খাঁটি রুহ, অদৃশ্য, যাঁর কোন দেহ, অঙ্গ নেই; যিনি অপরিবর্তনীয়, ব্যাপক, অনন্তকালীন, দুর্বোধ্য,সর্বশক্তিমান, সব চেয়ে জ্ঞানী, পবিত্র, স্বাধীন, যাঁর উপরে আর কেউ নেই; যাঁর নিজস্ব অপরিবর্তনীয় ও সব চেয়ে ধার্মিক ইচ্ছা অনুসারে, তাঁর নিজের গৌরবের জন্য, সব কাজ করছে; যিনি সব চে‌য়ে বেশি প্রেমময়, দয়ায় পূর্ণ, অনুগ্রহ, দয়াময়, দীর্ঘসহিষ্ঞু, উত্তমতা ও সত্যে অপরিসীম, অন্যায়, বিদ্রোহ ও পাপ ক্ষমাকারী; যারা তাঁকে তাদের পুরুস্কারদাতা; আর তাঁর বিচারে যিনি সব চেয়ে ন্যায়বিচারক ও ভয়াবহ; যিনি সমস্ত পাপকে ঘৃণা করেন, এবং যিনি দোষ সহ্য করেন না।


ঈশ্বরে আছে জীবন, গৌরব, উত্তমতা, আসির্বাদ, যিনি নিজে থেকেই স্বয়ং সম্পূর্ণ, কোন সৃষ্টির উপরে নির্ভরশীল নন, সৃষ্টির কাছ থেকে তিনি গৌরব পান নি, কিন্তু সৃষ্টির মধ্য দিয়ে তাঁর নিজের গৌরব প্রকাশ করেন; এর উপরে তিনি সার্বভৌম রাজত্বকারী, তিনি যাতে সন্তুষ্ট হন তা করতে পারেন। তাঁর দৃষ্টিতে নিজে তিনি প্রকাশ করেছেন - তাঁর জ্ঞান অসীম, নির্ভুল, আর সৃষ্টির উপর নির্ভরশীল নয়; তিনি তাঁর পরিকল্পনা, সকল কাজ ও আদেশে সব চেয়ে পবিত্র। সমস্ত ফেরেশতা, মানুষ ও প্রত্যেক সৃষ্টির ইবাদত, সেবা ও বাধ্যতা কেবল তাঁরই প্রাপ্য।


বাইবেলের ঈশ্বরের নামঃ ঈশ্বরের ব্যক্তিগত বা নিজের নাম হচ্ছে "ইয়াউয়ে" ইয়াউয়ে হিব্রু শব্দ যার অর্থ 'আমি আছি' বা 'আছি'। ঈশ্বর মুসা নবীকে যখন বনি ঈস্রায়েল জাতিকে মিশর দেশ থেকে বের করে আনতে পাঠান, তখন মুসা ঈশ্বরকে বলেন,

পরে মোশি ঈশ্বরকে কহিলেন, দেখ, আমি যখন ইস্রায়েল-সন্তানদের নিকটে গিয়া বলিব, তোমাদের পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর তোমাদের নিকটে আমাকে প্রেরণ করিয়াছেন, তখন যদি তাহারা জিজ্ঞাসা করে, তাঁহার নাম কি? তবে তাহাদিগকে কি বলিব? ঈশ্বর মোশিকে কহিলেন, “আমি যে আছি সেই আছি”; আরও কহিলেন, ইস্রায়েল-সন্তানদিগকে এইরূপ বলিও, “আছি” তোমাদের নিকটে আমাকে প্রেরণ করিয়াছেন। ঈশ্বর মোশিকে আরও কহিলেন, তুমি ইস্রায়েল-সন্তানদিগকে এই কথা বলিও, যিহোবা [সদাপ্রভু], তোমাদের পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর, অব্রাহামের ঈশ্বর, ইস্‌হাকের ঈশ্বর ও যাকোবের ঈশ্বর তোমাদের নিকটে আমাকে পাঠাইয়াছেন; আমার এই নাম অনন্তকালস্থায়ী, এবং এতদ্দ্বারা আমি পুরুষে পুরুষে স্মরণীয়। যাত্রাপুস্তক ৩:১৩-১৫

সুসা ঈশ্বরের সংগে কথোপকথনকারী নবী। তাই। মুসাকে কালেমাতুল্লাহ উপাধী দেওয়া হয়েছে। কেননা ঈশ্বর মুসাকে আরো বলেছেন,

ঈশ্বর মোশির সহিত আলাপ করিয়া আরও কহিলেন, আমি যিহোবা [সদাপ্রভু];আমি অব্রাহামকে, ইস্‌হাককে ও যাকোবকে ‘সর্ব্বশক্তিমান্ ঈশ্বর’ বলিয়া দর্শন দিতাম, কিন্তু আমার যিহোবা [সদাপ্রভু] নাম লইয়া তাহাদিগকে আমার পরিচয় দিতাম না। (যাত্রাপুস্তক ৬:২-৩)

ঈস্রায়েল জাতিকে উদ্দেশ্য করে মুসা ঈশ্বর সম্পর্কে বলেছিলেন -

হে ইস্রায়েল শুন; আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু একই সদাপ্রভু;আর তুমি তোমার সমস্ত হৃদয়, তোমার সমস্ত প্রাণ, ও তোমার সমস্ত শক্তি দিয়া আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম করিবে। (দ্বিতীয় বিবরণ ৬:৪-৫)
আমিই সদাপ্রভু, আর কেহ নয়; আমি ব্যতীত অন্য ঈশ্বর নাই;  (যিশাইয় ৪৫:৫)

ইসলামের আরবিতে, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ কথাটি বাইবেলের ঈশ্বর এখন থেকে প্রায় ৩০০০ বছর আগে ইশাইয়া নবীর মধ্যে দিয়ে বলেছিলেন। ঈশ্বর নামের মধ্যে দিয়ে তাঁর পরিচয় প্রকাশ করেছেন। যীশু খ্রীস্ট বলেছেন


"ঈশ্বর আত্না, যারা তাঁর উপাসনা করে, আত্নায় ও সত্যে তাদের সেই উপাসনা করতে হবে" (যোহন ৪:২৪) যীশু খ্রীস্টের শিষ্য পৌলের কাছে ঈশ্বর নিজের সম্পর্কে বলেন,

যিনি যুগপর্য্যায়ের রাজা, অক্ষয় অদৃশ্য একমাত্র ঈশ্বর, যুগপর্য্যায়ের যুগে যুগে তাঁহারই সমাদর ও মহিমা হউক। আমেন। (১ তীম ১:১৭)
যাহা সেই পরমধন্য ও একমাত্র সম্রাট, রাজত্বকারীদের রাজা ও প্রভুত্বকারীদের প্রভু, উপযুক্ত সময়-সমূহে প্রদর্শন করিবেন; যিনি অমরতার একমাত্র অধিকারী, অগম্য দীপ্তিনিবাসী, যাঁহাকে মনুষ্যদের মধ্যে কেহ কখনও দেখিতে পায় নাই, দেখিতে পারেও না; তাঁহারই সমাদর ও অনন্তকালস্থায়ী পরাক্রম হউক। আমেন্‌। (১ তীম ৬:১৫-১৬)

বাইবেলের ঈশ্বর বাহিনীগনের সদাপ্রভু, যিনি স্বর্গ ও পৃথিবীর সৃষ্টিকর্তা।

94 views0 comments
bottom of page