top of page
Search

প্রেরিতদের মন্ডলীতে সহভাগিতা ছিল কিন্তু বাংলাদেশের মন্ডলীগুলোতে সেই সহভাগিতার বড়ই অভাব কেন?



প্রিয়পাঠক, যীশু আপনাকে তাঁর বহুমূল্য রক্ত দিয়ে ক্রয় করেছেন। আমরা যেন সুসমাচারের সহভাগিতায় একে অপরকে ঈশ্বরের গৌরবের জন্য গেঁথে তুলতে পারি, তাই নয় কি?


গ্রীক শব্দ ‘‘কোইনোনিয়া’’ এর অর্থ হচ্ছে সহভাগিতা, সাহচর্য্য, উত্তম সঙ্গ, বন্ধুত্ব। সহভাগিতা হল মন্ডলীতে একে অন্যের প্রতি ঐশ্বরিক প্রেমের প্রকাশ। কোন কোন প্রচারক আমাকে বলেছেন যে খ্রীষ্ট অবিশ্বাসীদের আমাদের সঙ্গে সহভাগিতায় অনুমতি দেওয়া আমাদের উচিৎ নয়। এক দিক থেকে চিন্তা করলে তারা ঠিক বলছেন। বাইবেল বলছে, ‘‘আর অন্ধকারের ফলহীন কর্ম্ম সকলের সহভাগী হইও না, বরং সেগুলির দোষ দেখাইয়া দেও’’ ( ইফিষীয় ৫:১১)। অন্যান্য অনেক মন্ডলীতেও ঐ পদটি বহু লোককে বিভ্রান্ত করেছে। তারা মনে করেন এর অর্থ হল তাদের ‘‘মন্ডলীর শিশুদের’’ নতুন লোকদের থেকে দূরে সরিয়ে রাখা উচিৎ। পৌল বলেছিলেন [‘‘অন্ধকারের ফলহীন কর্ম্ম’’] নিয়ে আমাদের কিছুই করিবার নাই; [দিশাহারা মানুষ] নিয়ে আমাদের কিছু করার নেই কিন্তু এটি তিনি বলেন নি। কেননা তিনি সর্বোপরি, স্বয়ং যীশু পাপিদের সঙ্গে একত্রে ভোজন করেছিলেন।


প্রথম শতাব্দীর প্রাথমিক মন্ডলীগুলির বিষয়ে ডঃ গ্রীন যা বলেছেন তা আমার ভাল লেগেছে। তিনি বলেছিলেন, ‘‘সেখানে জিজ্ঞাসুগণ হইতে মতবাদ গোপন করা হইত না; সেখানে সহভাগিতা প্রত্যাহার ছিল না’’ (আইবিড., পৃ.218)। ‘‘অপরিত্রাণপ্রাপ্ত পরজাতীয়দের একেবারে মন্ডলীর অভ্যন্তরে, এবং সহভাগিতার মধ্যে আনা হত, যদিও তাহাদের প্রায় তিন বৎসর ব্যাপ্তিস্ম দেওয়া হইত না’’ (আইবিড)।


আমাদের প্রটেস্ট্যান্ট মন্ডলীগুলি বর্তমানে অন্য উপায়ে এই কাজ চতুর্দিকে করছে। তারা অবিলম্বে নবীন যুবকদের ব্যাপ্তিস্ম দিচ্ছেন, কিন্তু তারা চাইছেন না যে তাদের সন্তানরা ঐ নবীনদের সঙ্গে সহভাগিতায় থাকুক। প্রাচীন মন্ডলীগুলি এই কাজ সঠিকভাবে করত। অপরিত্রাণপ্রাপ্ত শিশুদের ভিতরে আনুন। তাদের ভাল খাবার খাওয়ান। তাদের একটা ভাল সময় দেখান - ‘‘সর্বোপরি, স্বয়ং যীশু পাপীদের সঙ্গে একত্রে ভোজন করিয়াছিলেন’’।


সেই কর্কশ, প্রাচীন ইহুদী ধর্ম্মীয় নেতাগণ যীশুর দোষ অনুসন্ধান করতেন। মথি ছিলেন একজন করগ্রাহক। যীশু তাকে ডেকেছিলেন, এবং মথি যীশুকে অনুসরণ করেছিলেন। তখন মথি তার বাড়িতে এক বিশাল ভোজসভার আয়োজন করেছিলেন। যীশু এবং তাঁর বারোজন শিষ্য সেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন। আরও অনেক করগ্রাহী এবং পাপিরা যীশুর সঙ্গে খেতে এসেছিলেন। ধর্ম্মীয় নেতারা ভেবেছিলেন যে যীশু ভুল করেছিলেন। তারা বলেছিলেন, ‘‘কেন যীশু এই সমস্ত পাপিদের সহিত একত্রে ভোজন করেন?"


যীশু তাদের উত্তর করেছিলেন, ‘‘কেননা আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকে ডাকিতে আসিয়াছি’’ (মথি ৯:১৩)।


যারা বহু সংখ্যক পাপিদের নিয়ে থাকতে ভীত হন সেই সমস্ত প্রচারকদের উচিৎ এই বিষয়ে চিন্তা করা! আমি বলছি, ‘‘পাপিদের মন্ডলীর ভিতরে আনুন! আপনি যত বেশি করে পারেন খুঁজে তাদের নিয়ে আসুন! যত বেশি তত আনন্দ!’’ তাদের একেবারে সহভাগিতার মধ্যে আনুন, যেমন যীশু করেছিলেন, যেমন প্রাচীন মন্ডলীগুলি করেছিল! ‘‘তাহাদিগকে ভিতরে আনুন। প্রথম শতাব্দীর জীবনোচ্ছল, শক্তিশালী মন্ডলীর কথা শুনুন,


‘‘আর তাহারা প্রেরিতদের শিক্ষায় ও সহভাগিতায় [কোইনোনিয়া!] নিবিষ্ট থাকিল এবং যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত ২:৪২-৪৩)।


খ্রীষ্টান হিসাবে আমরা যদি সুসমাচারের স্বর্গীয় সহভাগিতায় না থাকি, তাহলে তখন মন্ডলীর বৃদ্ধি চরমভাবে বাধাগ্রস্থ হবে।



41 views0 comments

Commenti


bottom of page